• আজঃ বুধবার, ৩১শে ভাদ্র, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৫ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং

স্ত্রী করোনা সংক্রমিত, গরুর ঘাস কাটতে গিয়ে জরিমানা দিতে হল কৃষককে

করোনা আবহে গরুর ঘাস কাটতে যাওয়ায় ২ হাজার টাকা জরিমানা দিতে হল কেরলের (kerala) এক কৃষককে (farmer)। তাঁর অপরাধ, তাঁর স্ত্রী করোনা আক্রান্ত হওয়ার পরও কেন তিনি মাঠে গরুর ঘাস কাটতে গিয়েছিলেন? সেই কারণে ২ হাজার টাকা জরিমানা দিতে হল ওই দরিদ্র কৃষককে।

কেরলের কাসারাগোডের কোদুম-বেল্লুর পঞ্চায়েতের বাসিন্দা ভি নারায়ণের বয়স আনুমানিক ৪৬ বছর এবং তাঁর বছর ৪৩ এর স্ত্রী শৈলজা এবং দুই ছেলে নিয়েই তাঁদের সংসার। তবে করোনা আবহে তাঁর স্ত্রী শৈলজা করোনা আক্রান্ত হন। শৈলজার শরীরে করোনা উপসর্গ দেখা না গেলেও, বর্তমানে তাঁকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।

ছেলে নিয়ে এখন বাড়িতেই রয়েছেন ভি নারায়ণ। দারিদ্রতার সঙ্গে লড়াই করার কারণে, ছেলেদের অনলাইন ক্লাসের জন্য মোবাইলও কিনে দিতে পারেননি তিনি। কিছুদিন আগেই ৭ হাজার টাকা ধার করে ঘরের ছাদ সারিয়েছেন। আবার কিছু অর্থ রোজগারের আশায় ব্যাঙ্ক থেকে ৫০ হাজার টাকা লোন নিয়ে একটি গরুও কিনেছিলেন। আর সেই গরুর জন্যই ঘাস কাটতে গিয়েছিলেন ভি নারায়ণ।

এই অবস্থায় ২ হাজার টাকা জরিমানা করায় মহাবিপদে পড়েছেন ভি নারায়ণ। তিনি জানান, ‘গরুর ঘাস কাটতেই মাঠে গিয়েছিলাম। আমি মাস্ক পরেই মাঠে গিয়েছিলাম। তখন সেখানে আমার আশেপাশে কেউই ছিল না। ভিড়ের মধ্যে গেলে সংক্রমিত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। কিন্তু ঘাস কাটলেও যে করোনা ছড়ায়, তা আমার জানা ছিল না। জোর করে আমার থেকে টাকা নিয়েছে পুলিশ’।