• আজঃ সোমবার, ১৮ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৩রা অক্টোবর, ২০২২ ইং

বাংলাদেশ-নেপাল ম্যাচ দিয়ে ফিরছে ফুটবল

করোনাভাইরাস মহামারিতে পুরো ক্রীড়াঙ্গন থমকে গিয়েছিল ৮ মাস আগে। আন্তর্জাতিক না হলেও নিজেদের মধ্যে ম্যাচ দিয়ে দেশে ফিরেছে ক্রিকেট। এবার ফিরতে যাচ্ছে ফুটবল। না ঘরোয়া নয়, আন্তর্জাতিক ফুটবল। মুজিববর্ষ ফিফা আন্তর্জাতিক ফুটবল সিরিজে দুটি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ ও নেপাল, যার প্রথমটি আজ শুক্রবার বিকাল পাঁচটায়।

ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে দুই দক্ষিণ এশীয় প্রতিপক্ষ মুখোমুখি হচ্ছে। ডিসেম্বরের চার তারিখে কাতারের বিপক্ষে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের আগে এই সিরিজকে প্রস্তুতির সেরা সুযোগ হিসেবে দেখছে বাংলাদেশ। নেপালও দীর্ঘ বিরতির পর তাদের যাচাই করে দেখতে চায়। ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে টি স্পোর্টস ও বিটিভি।

গত তিন সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে খেলোয়াড়, কোচ ও কোচিং স্টাফদের একাধিক করোনাভাইরাস টেস্ট করা হয়েছে। স্বাগতিকদের প্রত্যেকের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। কিন্তু এই ভাইরাসে আক্রান্ত সাত খেলোয়াড়কে রেখে এসেছে নেপাল। চোট তো পেছনে লেগে আছে দুই দলেরই।

গত জানুয়ারিতে বঙ্গবন্ধু গোল্ড কাপে বাংলাদেশকে সেমিফাইনালে নিতে জোড়া গোল করা মতিন মিয়া চোটে মাঠের বাইরে। জেমি ডের দলে নিয়মিত খেলা মাশুক মিয়াও নেই। একই কারণে সাবেক অধিনায়ক মামুনুল ইসলাম খেলতে পারবেন না। সর্বশেষ গোড়ালির চোটে ছিটকে গেছেন আরিফুর রহমান।

এত ইনজুরির কারণে জাতীয় দলে বেশ কয়েকজনের অভিষেক হয়ে যেতে পারে। বিশেষ করে নাবীব নেওয়াজ জীবনের সঙ্গে আক্রমণভাবে অভিষেক হতে পারে সুমন রেজার। জেমির ২৩ জনের চূড়ান্ত দলে আরেকটি নতুন মুখ ফরোয়ার্ড এমএস বাবলু।

নেপাল দল থেকে বাদ পড়া উল্লেখযোগ্য নাম রোহিত চাঁদ, দেবেন্দ্র তামাং ও বিশাল রায়। একাদশে তাদেরও একাধিক খেলোয়াড়ের অভিষেক হতে পারে আভাস দিয়েছেন কোচ বাল গোপাল মহার্জন।

দুই দলের মুখোমুখি লড়াইয়ে বাংলাদেশ এগিয়ে। ১৯ বারের দেখায় ১২ ম্যাচ জিতেছে তারা, ড্র একটি আর হার ছয়টি। সবশেষ ২০১৮ সালে দুই দলের মধ্যে লড়াই হয়েছিল। সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে গ্রুপ পর্বের ওই ম্যাচে বাংলাদেশ হেরেছিল ২-০ গোলে।

মুখোমুখি লড়াইয়ে পিছিয়ে থাকলেও ফিফা র‌্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের চেয়ে ১৭ ধাপ এগিয়ে হিমালয়ের দেশটি। তবে পরিসংখ্যান ও র‌্যাংকিংয়ের প্রভাব ম্যাচে খুব একটা পড়ার কথা নয়। অনেক দিন পর ফিরছে ফুটবল, উপভোগ করারই হবে দুই দলের মূলমন্ত্র।

দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।