• আজঃ শনিবার, ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৩ই আগস্ট, ২০২২ ইং

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত ও হত্যা সমর্থন করে না বাংলাদেশ

বাক স্বাধীনতার নামে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত এবং ধর্মের নামে হত্যা সমর্থন করে না বাংলাদেশ বলে ফ্রান্সকে আনুষ্ঠানিকভাবে চিঠি দিয়ে জানিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। বুধবার সকালে, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের এ কথা জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন।

ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের মহানবীকে নিয়ে দেয়া বক্তব্যের প্রতিবাদে কয়েকদিন ধরে আন্দোলন করছে ধর্মভিত্তিক দলগুলো। দাবী উঠেছে ফরাসী পণ্য বয়কটের। এসব খবর আন্তজার্তিক গণমাধ্যমে ফলাও করে প্রচার হলে ইউরোপীয় ইউনিয়নের কোনও কোনও আইনপ্রণেতা বাংলাদেশের পোশাক রপ্তানি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

এ অবস্থায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, বাংলাদেশের অবস্থান আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়েছে ফ্রান্সকে। যে কেউ আন্দোলন করতে পারে, কিন্তু সরকারের অবস্থান আন্দোলনের পক্ষে নয়। তাই ইউরোপীয় ইউনিয়ন বা ফ্রান্সের সাথে সম্পর্ক খারাপ হবার আশংকা নেই।

ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে এ বিষয়ে চিঠি দেয়া হয়েছে জানিয়ে আব্দুল মোমেন বলেন, ‘ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে আমরা বলেছি তাদের দেশে যারা মারা গেছে তাদের জন্য আমরা দুঃখিত। আমরা চাই না কোনও লোক খামোখা মারা যাক। দ্বিতীয়ত আমরা বলেছি যে আমরা স্বাধীনতায় বিশ্বাস করি এবং প্রত্যেকের স্পর্শকাতর বিষয়ে সাবধান হওয়া উচিত। উসকানিমূলক কোনও কিছু করা ঠিক হবে না।’

যে কোনো ব্যক্তি বা দল তাদের প্রতিবাদ জানাতেই পারে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এটা সরকারের অবস্থান নয়, তাই এই আন্দোলনে কোনও দেশের সাথেই সম্পর্ক নষ্ট হবে না। আমরা একটি গণতান্ত্রিক দেশ এবং সবার মত প্রকাশের অধিকার আছে। তারা কোনও হিংসাত্নক কাজ করছে না, ঘরবাড়ি ভাঙছে না। ইউরোপে যদি তারা দেখে, তবে কোনও অসুবিধা নাই। মানুষ তো তার মনোভাব ব্যক্ত করতেই পারে। কিন্তু সরকার এব্যাপারে বলেছে, আমরা কারও মৃত্যু চাই না। সেই সঙ্গে এটাও বলেছি, স্পর্শকারত বিষয়ে আমাদের সংযত হওয়া উচিত।

এর আগে, পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে দেখা করে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্টের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানায় বাংলাদেশ তরীকতে ফেডারেশন।

দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।