• আজঃ রবিবার, ১৯শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৩রা জুলাই, ২০২২ ইং

ক্ষমতার চার বছরে বিভিন্ন পদক্ষেপে সমালোচিত ট্রাম্প

ক্ষমতার চার বছরে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অনেক সিদ্ধান্তই সমালোচনার মুখে ফেলেছে তাকে।যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন একেবারেই আসন্ন। আড়াইশ’ বছর ধরে গণতান্ত্রিক শাসনব্যবস্থা হিসেবে বিশ্ব রাজনীতিতে মার্কিন নির্বাচনের গুরুত্ব অপরিসীম।

প্রথাগত রাজনৈতিক পরিবেশের বাইরে থেকে আসা ডোনাল্ড ট্রাম্পের শাসনামলে যুক্তরাষ্ট্রের ভূমিকা একের পর এক হোঁচট খেয়েছে আন্তর্জাতিক রাজনীতিতে। চার বছর আগে ক্ষমতায় এসে প্যারিস চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে সরিয়ে আনেন তিনি। সম্প্রতি করোনা মহামারি মোকাবিলায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলে সংস্থাটি থেকে বেরিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।তার কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বিশ্বের এক নম্বর পরাশক্তি হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের শ্রেষ্ঠত্ব। ২০১৮ সালের মাঝামাঝি উচ্চ হারে শুল্ক আরোপের মাধ্যমে চীনের বিরুদ্ধে বাণিজ্যযুদ্ধ শুরু করেন ট্রাম্প। দুই দেশের পাল্টাপাল্টি পদক্ষেপে টালমাটাল এখন দুই দেশের সম্পর্ক।

এদিকে, ইরানের সঙ্গে সম্পাদিত ছয় জাতি পরমাণু চুক্তি থেকেও সরে এসেছেন ট্রাম্প। চলতি বছরের জানুয়ারিতে ইরানের শীর্ষ কমান্ডার কাসেম সোলাইমানি ইরাকের রাজধানী বাগদাদে মার্কিন ড্রোন হামলায় নিহত হন। পাল্টা পদক্ষেপ হিসেবে ইরাকের দুটি মার্কিন ঘাঁটিতে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইরান। ফলে দুই দেশের মধ্যে সংঘাতময় পরিস্থিতি তৈরি হয়।ফিলিস্তিনি সংকটের স্থায়ী সমাধান না করে সম্প্রতি ইসরায়েলের সঙ্গে মধ্যপ্রাচ্যের তিনটি দেশের সম্পর্ক স্বাভাবিক করার উদ্যোগ নিয়ে সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে ট্রাম্পকে।যুক্তরাষ্ট্রে অবৈধ অভিবাসী ঠেকাতে মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের ব্যাপারে নির্বাহী আদেশ জারি করেন ট্রাম্প। ক্ষমতায় আসার পর পরই সাতটি মুসলিম-সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশের ভ্রমণকারীদের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের সীমান্ত বন্ধ করে দেন তিনি।

এভাবে চার বছরে ‘আমেরিকা ফার্স্ট’ নীতির মাধ্যমে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়ে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প মূলত বহির্বিশ্বে যুক্তরাষ্ট্রের নেতিবাচক ভাবমূর্তি তৈরি করেছেন প্রতিনিয়ত। এমনটাই মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।