লোড বন্ধ করুন
  • আজঃ রবিবার, ১০ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৩শে জানুয়ারি, ২০২২ ইং

ভাসানচরে প্রস্তুত জাতিসংঘ ভবন, থাকবে পুলিশের পূর্ণাঙ্গ থানা ও ফাঁড়ি

শুধু বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের জন্যই নয়, তাদের জন্য কাজ করা এনজিও কর্মীদের সুযোগ সুবিধারও ব্যবস্থা রাখা হয়েছে ভাসানচরে। জাতিসংঘ ও অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থার কর্মীদের জন্য প্রস্তুত শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ভবন। আরআরআরসি ও প্রশাসনের প্রতিনিধিদের জন্য আছে আলাদা অবকাঠামো। সবমিলে সাগরের বুকে ভাসানচরে গড়ে তোলা হয়েছে পুরোদস্তুর আধুনিক জীবন ব্যবস্থা।

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কাজ করছে শতাধিক দেশি বিদেশী এনজিও। টেকনাফে ভালো মানের হোটেল না থাকায়, বেশিরভাগ কর্মীকে থাকতে হচ্ছে ৭৪ কিলোমিটার দূরে কক্সবাজারে।উন্নয়ন কর্মীদের এই সমস্যার সমাধান দিয়েছে ভাসানচর আশ্রয়ন প্রকল্প। গুরুত্বপূর্ণ অতিথিদের জন্য অপেক্ষায় আছে নান্দনিক গেস্টহাউজ। তৈরি হয়ে আছে চারতলা জাতিসংঘ ভবন। ভেতরে আধুনিক জীবন যাপনের সব উপাদান শতভাগ প্রস্তুত।
আরো আছে রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট কর্মিদের জন্য আলাদা ভবন। আরেকটি চারতলা ভবন তৈরি হয়েছে শুধুমাত্র শরনার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশন ও প্রশাসনের প্রতিনিধিদের জন্য। দুই ভবনে পুলিশের পূর্নাঙ্গ থানা ও একটি ফাড়ি।

ভাসানচর আশ্রয়ণ প্রকল্প প্রকল্প পরিচালক কমোডর আব্দুল্লাহ আল মামুন চৌধুরী বলেন,’প্রতিটি রুমের মাঝে এয়ারকন্ডিশনার থাকবে। সেপারেট ডাইনিং স্পেস, সেপারেট কনফারেন্স রুম।’

ভাসানচরের একসঙ্গে তিন মাসের খাদ্য সংরক্ষণ করা যাবে। জরুরি ত্রাণসামগ্রী সংরক্ষণের জন্য প্রস্তুত ২০৫ ফুট দৈর্ঘ্যের চারটি সুবিশাল ওয়্যারহাউজ।