নোয়াখালীতে করোনা নিয়ে দোকান চালাচ্ছে দর্জি!

নোয়াখালী সংবাদদাতাঃ


রমজান আলী খোকন (৩৫)। সে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বসুরহাট পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের লোকমান হোসেনের ছেলে। বসুরহাট আরডি শপিং মলে মায়ের দোয়া টেইলার্স অ্যান্ড বোরকা হাউজের মালিক তিনি। গত ১০ জুলাই খোকনের নমুনা পরীক্ষায় করোনা পজিটিভ আসে। এরপর তার বাড়ি লকডাউন ঘোষণা করে তাকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখে প্রশাসন। কিন্তু তিনি করোনায় আক্রান্তের তথ্য গোপন করে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করে আসছিলেন।

বুধবার দুপুরেও তিনি বসুরহাট বাজারের আরডি শপিং মলের তৃতীয় তলায় তার মালিকানাধীন মায়ের দোয়া টেইলার্স অ্যান্ড বোরকা হাউজে কাজ করছিলেন। পরে খবর পেয়ে তাকে আটক করে প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশন সেন্টারে পাঠানো হয়।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মো. সেলিম জানান, করোনায় আক্রান্তের তথ্য গোপন রেখে বুধবার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করার সময় পুলিশ তাকে আটক করে প্রাতিষ্ঠানিক আইসোলেশন সেন্টারে পাঠায়।

কোম্পানীগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রবিউল হক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।