• আজঃ শনিবার, ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১লা অক্টোবর, ২০২২ ইং

মাসজিদ এখন গরু ও শুয়রের ঘর!

এটি আজারবাইজানের আজদাম জামে মাসজিদ। ১৯৯৩ সালে আরমেনীরা দখল করে গরু ও শুয়রের ঘরে পরিণত করেছে। তারা এটি একটি ধর্মীয় স্থান হিসেবে কখনো ভাবতে পারেনি। এটির সম্মান রক্ষা করার প্রয়োজনও মনে করেনি।

কিন্তু এখন আয়া সোফিয়া নিয়ে যারা মায়া কান্না শুরু করেছে তারা কখনো এসব মাসজিদ নিয়ে কথা বলেছে। তারা জানে? বর্তমান বিশ্বে এমন শত শত নয়; বরং হাজার হাজার মাসজিদে গরু ও শুয়র থাকছে।
দুরে যাওয়ার দরকার নেই প্রতিবেশী রাষ্ট্র ভারতেই এমন অসংখ্য মাজদিদ রয়েছে যেখানে হিন্দও ও শিখরা দোকান-পাট ও বাসা-বাড়ি বানিয়ে বউ-বাচ্চা নিয়ে সংসার করছে।

আমার আফসোস হয়, এখন কিছু কিছু মৌলভীও সীরাতে রাসূল এবং ফিকহে ইসলামীর আলোকে আয়া সোফিয়াকে মিউযিয়াম হতে মাসজিদে রুপান্তরিত হওয়া নিয়ে ইসলামের বিশেষজ্ঞ সেজে বসেছে। ইসলামের দরদী সেজে মায়া কান্না করছে। তরষ্কের আদালতের রায়ে তারা বেশ নাখোশ। রাজতন্ত্রের পেইড দালালদের সুরে সুর মিলিয়ে Liberalism এর এই টেবলেট গিলতে শুরু করেছে।

দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।