• আজঃ মঙ্গলবার, ২১শে আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৫ই জুলাই, ২০২২ ইং

আসুন করোনাকালে আরো বেশি মানবিক হই!

করোনার প্রভাবে বাংলাদেশ সহ সারাবিশ্ব ক্লান্তিক্লাল পার করছে। এই সংকটময় দুর্গম পথ পাড়ি দেওয়া সরকারের একার পক্ষে সম্ভব নয়। মহানুভবতা ও অান্তরিকতা নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে আমাদের সবার।

সবাইকে মেনে চলতে হবে স্বাস্থ্যবিধি। দাঁড়াতে হবে অসহায়দের পাসে। দেশের সকল মানুষই খারাপ সময় পার করছে। করোনার বিরুপ প্রভাব পরেছে সকল সেক্টরে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বাংলাদেশে করোনার পিক টাইম আসছে!

সংকটের শুরু থেকেই বিপাকে খেটে খাওয়া স্বল্প আয়ের কর্মহীন বহু মানুষ। করোনা সংকটে কর্মহীন এসব মানুষের খেয়ে পরে বেঁচে থাকাটাই এখন সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। রাষ্ট্রিয় ও ব্যাক্তিগত উদ্যোগে খাদ্য সহায়তা কর্মসুচি চলমান থাকার পরেও সেটা পৌঁছানো যাচ্ছে না সবার কাছে। জমানে টাকা ভেঙে কিছুদিন চললেও এখন তাও শেষ। অনেকেই ২/৩ মাসের বাসা ভাড়া নিয়ে পরেছেন বিপাকে।

তারা অসেকেই ছাড়ছেন ঢাকা। অর্থনৈতিক মন্দাভাবের প্রভাব আমাদের দেশেও পড়তে শুরু করেছ। মন্দার প্রভাবে বাংলাদেশের অর্থনীতির চালিকা শক্তি তৈরি পোশাক শিল্পের ক্রয়াদেশ কমছে! সামাজিক ও অর্থনৈতিক শৃঙ্খলা ঠিক রাখতে সরকারকে এখনই ভাবতে হবে। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, প্রশাসন এবং বিশেষজ্ঞদের সমন্বয়ে সমন্বিত পরিকল্পনা নিয়ে এগোতে হবে।


লেখক, কামরুল হাসান সোহাগ
প্রধান পৃষ্ঠপোষক, সম্ভাবনার কলসকাঠী

দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।