• আজঃ বৃহস্পতিবার, ১৮ই আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২রা জুলাই, ২০২০ ইং, ১২ই জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী

মতিঝিল ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে ভুয়া ডাক্তার , অভিযান চারজনকে সাজা

নিউজ ডেস্কঃ


বৈশ্বিক মহামারি করোনাকালেও থেমে নেই জালিয়াত চক্রের জালিয়াতি। এবার খোদ রাজধানীর সুপরিচিত মতিঝিল ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে ভুয়া চিকিৎসকের সন্ধান মিলেছে । আজ রবিবার দুপুর সোয়া ১২টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত হাসপাতালটিতে ভুয়া চিকিৎসকের তৎপরতা এবং হাসপাতালে নানা অনিয়মের বিরুদ্ধে অভিযান করে র‌্যাব-৩-এর সহযোগিতায় পরিচালিত ভ্রাম্যমাণ আদালত ।

করোনাকালীন সময়ে হাসপাতালগুলোতে বিভিন্ন অনিয়মের খবর পাওয়া যাচ্ছে। এ অবস্থায় ভূয়া চিকিৎসকের অপতৎপরতা নজরদারি করছে গোয়েন্দা সদস্যরা। ভুয়া চিকিৎসক থাকাসহ বেশ কিছু অভিযোগের ভিত্তিতে মতিঝিলের ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে অভিযান পরিচালনা কর হয়। অভিযানে একজন ভূয়া চিকিৎসককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ভূয়া চিকিৎসক মিজানুর রহমানকে ২ বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে।

এছাড়াও হাসপাতালটির ফার্মেসিতে অনুমোদনহীন ওষুধ থাকায় দুজনকে শাস্তি দেওয়া হয়েছে। মতিঝিল ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালের মিজানুর রহমান (৫০) নামে একজন ডাক্তার ১২ বছর ধরে চিকিৎসা দিয়ে আসছেন। তিনি ইউনানির সাময়িক অনুমোদন নিয়েই দিয়ে আসছিলেন এ্যালোপ্যাথিক চিকিৎসা। কিন্তু ইউনানি নীতিমালা অনুযায়ী এটা করা যায় না। এছাড়াও তিনি প্রেসকিপশনে নিজেকে ডাক্তার হিসেবে উল্লেখ করে আসছিলেন। শুধু তাই নয় হƒদরোগ ও লিভার বিশেষজ্ঞ, পিএইচডি ও এমফিলের ভুয়া ড্রিগ্রিও ব্যবহার করতেন তিনি ।

ইউনানি চিকিৎসক হয়েও এ্যালোপ্যাথিক ওষুধ ও বিভিন্ন জটিল রোগের চিকিৎসা দিয়ে আসছিলেন। পরে তাকে দুই বছরের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেওয়া হয়। এছাড়াও হাসপাতালের এ্যাসিসটেন্ট সুপারভাইজার মো. হাসিনুর রহমানকে সাড়ে ৪ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেওয়া হয়েছে।

এছাড়াও ইসালামী ব্যাংক হাসপাতালের ফার্মেসিতে অপারেশন থিয়েটারে ব্যবহƒত অনুমোদনহীন ইনজেকশন (টিএআর) সার্জিক্যাল আইটেম এবং ওষুধ রাখার দায়ে মো, শফিউল ইসলাম ও আব্দুল জলিল নামে দুজনের প্রত্যেককে ৫ লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে তিন মাসের বিনাশ্রম জেল দেওয়া হয়েছে।


ফেসবুকে লাইক দিন