• আজঃ শুক্রবার, ২৮শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১২ই আগস্ট, ২০২২ ইং

শত্রু শত্রু এক হয়ে এমপির বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র

সারোয়ার হোসেন,রাজশাহী প্রতিনিধি:


রাজশাহীর তানোর উপজেলা আওয়ামী লীগের আলোচিত এক দলের দুই নেতার জাতশত্রুতার অবসান ঘটিয়ে হাতে হাত রেখে কমর বেধে নেমেছে রাজশাহী-১ (তানোর-গোদাগাড়ী) সংসদীয় আসনের এমপি ও সাবেক শিল্প প্রতিমন্ত্রী ওমর ফারুক চৌধুরীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন সভা সমাবেশ করে অবান্তর কাল্পনিক সব মনগড়া মিথ্যা অপপ্রচারে বিষাদাগার করছে উপজেলা আওয়ামী লীগের বহিষ্কারকৃত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন বলে অভিযোগ উঠেছে।

এতে করে রাব্বানী ও মামুনের এমন মিথ্যা অপপ্রচারের মাধ্যেমে এলাকাজুড়ে দেখা দিয়েছে আওয়ামী লীগের প্রতি মিশ্রপ্রতিক্রিয়া ও তৃণমূল নেতাকর্মী সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা। এছাড়াও অন্যদিকে তাদের মিথ্যা অপপ্রচারে আওয়ামী লীগের সম্ভাবনাময় গুছানো মাঠ নষ্ট হচ্ছে বলেও অভিযোগ রয়েছে নেতাকর্মীদের।

ভূইফড় আক্যমা গোলাম রাব্বানী ও বগি নেতা আব্দুল্লাহ আল মামুনের বিরুদ্ধে দলীয় শাস্তির ব্যবস্থা গ্রহণ করতে তাদের বিরুদ্ধে গোপনে অনুসন্ধান দাবি জানিয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতাকর্মীরা বলে একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র নিশ্চিত করেছে।

জানা গেছে, তানোর-গোদাগাড়ীর জনপ্রিয় বর্তমান এমপি ওমর ফারুক চৌধুরীর জনপ্রিয়তাকে তৃণমূল নেতাকর্মী সমর্থকদের ও এলাকাবাসীর কাছে হেয় প্রতিপণ্য করতে বিভিন্ন মিথ্যা বানোয়াট ভিত্তিহীন সব মনগড়া অভিযোগ এনে কিছু জনবিচ্ছিন্ন অপ্রচলিত মতলববাজ নেতা নিজের স্বার্থ হাছিলে ব্যর্থ হয়ে আওয়ামী লীগের সুনাম ক্ষুন্য করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে।

এছাড়াও উপজেলা আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতাকর্মীদের কাছে এমপি ওমর ফারুক চৌধুরীর বিরুদ্ধে বলে কোন লাভ নেই। অতয়েব কথিত চক্রান্ত কারিরা এমপি ওমর ফারুক চৌধুরীর বিরুদ্ধে ভুয়া বগি আওয়াজ তুলা ছাড়া আর কিছুই না।

ইতিমধ্যে গোলাম রাব্বানী ও মামুন বেশকিছু মঞ্চে উঠে এমপি ফারুক চৌধুরীর বিরুদ্ধে বিভিন্ন অবান্তর মিথ্যা কথিত অভিযোগ তুলে নেতাকর্মীদের মধ্যে ভেদা ভেদ সৃষ্টি করতে বিভ্রান্ত মূলক মন্তব্য ও বক্তব্যের মাধ্যমে অপপ্রচার করছে এবং অপপ্রচার অব্যহত রেখেছে।

কিন্তু তাদের সংঘবদ্ধ চক্রান্তের পরিকল্পনাটি নেতাকর্মী সমর্থকদের মধ্যে ফাঁস হয়ে পড়ায় তাদেরকে ঘিরে উপজেলা জুড়ে বইতে শুরু করেছ চাঞ্চল্য ও এলাকাজুড়ে দেখা দিয়েছে তীব্র সমালোচনার ঝড়।

গোলাম রাব্বানী ও বগি নেতা আব্দুল্লাহ আল মামুনের এমন পরিকল্পিত চক্রান্তের অপপ্রচারে চরম ক্ষুদ্ধ হয়ে দলের হাইকমান্ডের কাছে তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ভাবে শাস্তির দাবী জানিয়েছে তৃণমূল আওয়ামী লীগের ত্যাগি নেতাকর্মীরা।

তানোর পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ প্রদীপ সরকার বলেন, তানোর-গোদাগাড়ী আওয়ামী লীগে ওমর ফারুক চৌধুরীর কোন বিকল্প নেই। তাই তানোর-গোদাগাড়ীর উন্নয়ন অব্যহত রাখতে এমপি ওমর ফারুক চৌধুরীর কোন বিকল্প নেই।

তানোর উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি খাদেমুন নবী চৌধুরী বাবু জানান, বর্তমানে ও আগামীতেও আওয়ামী লীগের কান্ডারী হিসাবে তানোর-গোদাগাড়ীর জনসাধারনের প্রাণপ্রিয় নেতা উত্তর অঞ্চলের জনবান্ধব কর্মী আওয়ামী লীগের কান্ডারী এমপি ওমর ফারুক চৌধুরীকে নিয়ে সামনে এগিয়ে যেতে চাই আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী সমর্থকরা। এতে কোন বিকল্প নেই বলে তিনি জানান।

দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।