• আজঃ বৃহস্পতিবার, ১৬ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৩০শে জুন, ২০২২ ইং

বাঘারপাড়া কলেজে সভাপতির নির্দেশে পিতাসহ নৈশপ্রহরীকে জখম

বিল্লাল হোসেন,যশোর প্রতিনিধি:


যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার জোহুরপুরের খবি-উর রহমান কলেজের নৈশপ্রহরী ও তার পিতাকে কুপিয়ে জখম করেছে দুর্বৃত্তরা। মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে কলেজ পরিচালনা পরিষদের সভাপতির নেতৃত্বে তাদের উপর সশস্ত্র হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ উঠেছে।

আহতরা হলেন নৈশপ্রহরী জোহুরপুর গ্রামের শেখ রিপন (৩৭) ও তার পিতা শেখ আবু বক্কার (৫৮)। তারা যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
খবির-উর রহমান কলেজের অধ্যক্ষ মোহাম্মদ শামসুর রহমান জানান, গত ৩০ মে কলেজ পরিচালনা পরিষদের সভাপতি নুর মোহাম্মদ কলেজে এসে নৈশ প্রহরী রিপনের কাছে ভবনের চাবি চান।

এসময় রিপন তাকে জানান, অধ্যক্ষ স্যারের অনুপস্থিতিতে চাবি দিতে পারবেন না। এই নিয়ে কলেজের সভাপতির সাথে নৈশ প্রহরীর কোন্দল তৈরি হয়। অধ্যক্ষ মোহাম্মদ শামসুর রহমান আরো জানান, মঙ্গলবার সকালে কলেজের নতুন ভবনের কাজ শুরু হওয়ার আগে প্রকৌশলী ও ঠিকাদার দেখতে আসেন।

এসময় সভাপতিকে ফোন দেয়া হলেও তিনি কলেজে আসেননি। প্রকৌশলী ও ঠিকাদার চলে যাওয়ার পর সভাপতি নুর মোহাম্মদ , তার ভাই জোহুরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান দিলু পাটোয়ারিসহ ১৫/১৬ জন কলেজে আসেন। অধ্যক্ষ জানান, এসেই তারা আমার সাথে বিতর্কে জড়িয়ে পড়ে। কেনো সেদিন নৈশপ্রহরী তাকে কলেজে মিটিং করার জন্য চাবি দেননি এর জবাব চান।

এসময় ক্ষিপ্ত নুর মোহাম্মদের নির্দেশে তার ক্যাডাররা প্রথমে নৈশপ্রহরী শেখ রিপনকে মারপিট শুরু করে ও কুপিয়ে জখম করা হয়। ছেলেকে রক্ষা করার জন্য তার পিতা শেখ আবু বক্কার এগিয়ে আসলে দুর্বৃত্তরা তাকেও কুপিয়ে জখম করে। যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের সার্জারি ওয়ার্ডে দায়িত্বরত চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, আহত দুইজনের মধ্যে রিপনের অবস্থা বেশি গুরুতর।

 

দুঃখিত! কপি/পেস্ট করা থেকে বিরত থাকুন।