• আজঃ মঙ্গলবার, ৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২০শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

আদিঅন্তহীন নদীর গল্প-সিদ্দিক তুহিন

আদিঅন্তহীন নদীর গল্প
আবু নাসের সিদ্দিক তুহিন


এক ঝাক সাদা বক উড়ে যায় আকাশে
গাছের মগডাল বসে,নিড়ের খোঁজ নেয়
বালাসী ঘাটের নৌকো পাড়ে,
ফিরে আসে পিয়াসি মন আঁকড়ে ধরে ধবল সান্নিধ্য
মাঝি আর মানুষের কলরবে চৈতন্য আসে
টইটুম্বর চেনা ঘাটপাড় নৌকো আর নৌকো

মুখরিত শতাব্দীর আয়ুরেখা হিসেব কষে
ফিরে দেখা সেইসব দিন বদলের গল্প
সব গুলো ঘাট,অঘাট হয়ে যাচ্ছে,স্মৃতিতে
পরে থাকে শুধুই মায়াবি সমন্ধ নিষ্ঠুর নিয়তি
সে কালের মুখরিত তিস্তামুখ ঘাট আজ জীর্ণ
হাতছানী দেয় শুন্যতার,এনগর যৌলসে ছিল
মায়াবী মন ছুটে চলে, দ্বীচক্রযানে নদীর ঘাটে
ফুলছড়ির হাট পাড়ে এখনো সেই হাট বসে
দুরদুরান্ত থেকে নৌকোয় চেপে বিকিকিনি আসর।

নদীর ভাংগনে কত কিলো জনপদ বিলীন হয়েছে
মেপেছে কেউ, কত কষ্ট নদীর বুকে
হিমালয় থেকে নেমে আসা বরফ গলা জলে
পানির তোড়ে ভেসে গেছে কতটা জীবন
তিস্তা,ধরলা, ঘাঘট,ছোট বড় অসংখ্য নদী
ব্রক্ষ্মপুত্র আজ ডাক দেয় বিস্তৃত বালুরচরে
পানির তোড়ে ভড়াট হয়েছে নদীর মাঝপথ ব
ক্ষকুল ভোরে গেছে নিষ্ঠুরভাবে কষ্ট পাওয়া
আদিঅন্তহীন কাল কালান্তরে নদীর গান।

ছোটবড় বালির পর বালি জড়িয়ে কষ্টের নদী
কমেছে নদীর নাব্যতা,নদীর বুকে কষ্টের পাথর
দুপাড়ের মানুষগুলো এখন শুধুই দেখে
ভাংগনের খেলাটুকু আর্তনাদ আর কান্না
প্রধান ফসলে এসেছে পরিবর্তনের পরিচয়
নানান বৈশাখী হাওয়ায় চরের মানুষ আনন্দে
তিল, তিসি, কাউন,সরিষা, বাদাম,ধান,আলু
কালিজিরার জায়গায় এখন ভুট্টা আর ভুট্টা
ভুট্টা করে নিয়েছে প্রধান ফসলের নাম ডাক।

নদীর এপাড় ওপাড়ে এখন আর কেউ নেই
দোতড়া কাধেঁ গান গায় না,গীত মাঝির গান
তোলে না এখন সুর,শুধুই নৌকোর ছুটেচলা
শুধুই নিরাপদ পাড়াপাড়ের খোঁজে শব্দাবলী
নৌকোর পাল নেই ,বাতাসের দোল নেই!
নদীর গতিপথ বদলে যাচ্ছে ঘাটের পর ঘাট
পরিবর্তনে চরের মানুষে এলো মেলো বসতি,
মনে করিয়ে দেয় সেইসব অতিত সোনালী দিন গুলোর কথা।
শান্তির কথা,নৌপথের কথা

নদীর ঘাট ছিলো, নৌ বন্দর ছিলো,
লঞ্চ ঘাট ছিলো, গায়কী মাঝি ছিলো,
ছই সমেত বাহারি নৌকো ছিলো,
কদরনাথ বনিকের নাও ছিলো,
ভাসমান পল্লী ছিলো,
নির্মল বিশুদ্ধ প্রকৃতির বাতাস ছিলো
পালতোলা নৌকার ছড়াছড়ি ছিলো,
হাট-ঘাট মাঠ বিস্তর বড়সর চর ছিলো
নদী ভর্তি মাছ ছিলো,বাইগোর,বোয়াল,রিটা,
বৈড়াল, বাশঁপাতালী,চিংড়ি,ইলিশ,চ্যালা

কি আনন্দে নদীর দুকুল ছাপিয়ে ছিলো
এই মানুষ গুলোই
একদিন বাংলার নদী ঘিরে
এখনো, সেই সোনালী দিনগুলো ফিরে পেতে
স্বপ্ন দেখে নদী পাড়ের সেই সব
বীরযোদ্ধা মানুষ গুলো।