• আজঃ মঙ্গলবার, ৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২০শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

করোনা প্রাদুর্ভাব দীর্ঘদিন থাকার আশঙ্কা:ডব্লিউএইচও প্রধান

নগর২৪ ডেস্ক:


নভেল করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) প্রাদুর্ভাব কমছেই না। প্রতিদিনই হাজার হাজার মানুষের প্রাণ কেড়ে নিচ্ছে ভাইরাসটি। নতুন করে সংক্রমিত হচ্ছে লাখো মানুষের শরীরে। এমন অবস্থায় করোনার প্রকোপ ধীরে ধীরে কমে আসলেও এর প্রভাব দীর্ঘদিন থাকার আশঙ্কার কথা জানালেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) প্রধান টেড্রোস আধানম গেব্রেয়েইসুস। তিনি আশঙ্কা করছেন, কয়েক দশকজুড়ে থাকতে পারে কোভিড-১৯ মহামারীর প্রকোপ!

দুবাই কর্তৃপক্ষের আয়োজনে ২২ জুন, সোমবার একটি ভার্চুয়াল কনফারেন্সে আধানম গেব্রেয়েইসুস বলেন, ‘বিপদ এখনো কাটেনি৷ আরো কয়েক দশক ভুগতেই হবে আমাদের। এই সংকটকে শুধু স্বাস্থ্য সংকট নয়, একই সঙ্গে অর্থনৈতিক, সামাজিক এবং কিছু দেশের ক্ষেত্রে রাজনৈতিক সংকট হিসেবে উল্লেখ করে তিনি করোনা-যুদ্ধ জিততে সকল দেশকেই পুণরায় একসাথে লড়াই করার আহ্বান জানান।

করোনা প্রতিরোধে এখন পর্যন্ত বিশ্বে ১৩৫টি ভ্যাকসিন তৈরির কাজ চলছে বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। তাদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, এর মধ্যে ১৩টি ভ্যাকসিনের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ চলছে। বাকিগুলো এখনো প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে ৷

এ প্রসঙ্গে ডব্লিউএইচও প্রধান বলেন, ‘এ বছরের শেষেও যদি করোনার কোনো প্রতিষেধক পাওয়া যায়, তাহলেও তা সারা বিশ্বের মানুষের হাতে এই প্রতিষেধক পৌঁছতে আড়াই বছরেরও বেশি সময় লেগে যাবে ৷’

ইতোমধ্যে সারা পৃথিবীতে করোনায় মৃতের সংখ্যা ৪ লাখ ৮০ হাজার ছুঁইছুঁই। আর আক্রান্তের সংখ্যা সাড়ে ৯৩ লাখ ছাড়িয়েছে। এমন অবস্থায় ভ্যাকসিন নিয়ে গবেষণা চললেও পরীক্ষামূলক প্রয়োগের পর সফল হিসেবে কোনো ভ্যাকসিন এখনো সামনে আসেনি ৷ তবে করোনা মহামারীর ক্ষেত্রে আশার আলো আছে বলেও জানান টেড্রোস আধানম গেব্রেইয়েসুস ৷

ইতোমধ্যে বহু দেশে প্রাণঘাতী এ ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব কমতে শুরু করেছে ৷ কয়েকদিন আগে করোনারোগী শূন্য হয়ে পড়েছিলো নিউজিল্যান্ড৷ এর বিরুদ্ধে সফলতার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে ভিয়েতনাম-সিঙ্গাপুরের মতো দেশ।

নেদারল্যান্ডসে ১২ মার্চ প্রথম সংক্রমণ শনাক্ত হওয়ার পর গত ২২ জুনের পর নতুন কোনো রোগী শনাক্ত হয়নি বলে জানিয়েছে ডাচ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। ইতোমধ্যে দেশটিতে প্রায় ৬ হাজার মানুষ মারা গেছেন। একসময় মৃত্যুপুরীতে পরিণত হওয়া ইতালিতেও মৃত্যুর হার অনেক কমে এসেছে। আগের ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে মাত্র ২৪ জন মারা গেছেন, যা ২ মার্চের পর সবচেয়ে কম।