• আজঃ বৃহস্পতিবার, ৯ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

মালয়েশিয়া সরকার ঘোষিত ‘ব্যাক ফর গুড কর্মসুচি

মালয়েশিয়াতে অবস্থানরত বিভিন্ন দেশের অবৈধ অভিবাসীদের নিজ নিজ দেশে ফেরার জন্য সরকার ঘোষিত সাধারণ ক্ষমা ‘ব্যাক ফর গুড” কর্মসূচির মেয়াদ শেষ হচ্ছে আগামী ৩১ ডিসেম্বর। কিন্তু শেষ মুহূর্তে ইমিগ্রেশন গুলোতে প্রচুর লোকের ভিড় হওয়াতে কুয়ালালামপুর আশপাশের ইমিগ্রেশনগুলোতে সকাল থেকে মধ্যরাত ব্যাপী কাজ করেও কুলাতে পারা যাচ্ছে না। আবার দুই একদিনের মধ্যেই শেষ যাবে অনেকের বিমান টিকিটের মেয়াদ।

এমতবস্থায় আজ শনিবার মালয়েশিয়াস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশনের তৎপরতায় প্রায় দুই শতাধিক বাংলাদেশি নাগরিকের স্পেশ্যাল পাশ সংগ্রহ করা হয়েছে।

সকালে পুত্রজায়া ইমিগ্রেশন থেকে দু’টি বাস যোগে ৮৫ জনকে নিয়ে রওনা দেয় পেরাক ইমিগ্রেশনে এবং অপর দু’টি বাস ৮৬ জনকে নিয়ে রওনা দেয় কুয়ানতান ইমিগ্রেশনে। ফ্রি বাস এবং অনিশ্চয়তায় থাকা প্রবাসীরা এমন সেবা পেয়ে খুশি।

মালয়েশিয়া সরকার ঘোষিত ‘ব্যাক ফর গুড কর্মসুচি’র আওতায় ১ আগস্ট থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত শুধুমাত্র ৭০০ রিংগিত জরিমানা দিয়ে ইমিগ্রেশনের স্পেশাল পাস নিয়ে দেশে ফেরার সহজ সুযোগ নিতে প্রতিদিন বিভিন্ন দেশের শত শত নাগরিক ইমিগ্রেশনে যায়।

এভাবে শেষ তারিখ যতই ঘনিয়ে আসতে থাকে ততই ভীড় বাড়তে থাকে। ফলে স্পেশ্যাল পাশ পাবার সুযোগ সীমিত হয়ে আসে। অনেকের ফ্লাইট ভ্রমণের তারিখ উত্তীর্ণ হবার পথে।
এ অবস্থায় পুত্রজায়া ইমিগ্রেশনে অপেক্ষমান নাগরিকের মধ্যে হতাশা নেমে আসে। সে মুহূর্তে হাইকমিশনআরের নির্দেশে হাইকমিশনের কর্মকর্তারা ইমিগ্রেশনের সাথে পরামর্শ করে ইপো পেরাক ও কুয়ান্তান ইমিগ্রেশনে নিয়ে যাবার আয়োজন সম্পন্ন করে।

অপেক্ষমানদের মধ্য থেকে যাদের ফ্লাইট খুব নিকটে এমন অপেক্ষমানদের তালিকা প্রস্তুত করা হয়। যাদের পাওয়া গেছে তাদের এবং পরদিন সকালে উপস্থিত যে কতজনকে পাওয়া গেছে তাদের নিয়ে ৪ টি বাস রওয়ানা করে। এরমধ্যে দু’টি বাস কুয়ান্তান ইমিগ্রেশনে এবং অপর দুটি বাস পেরাক ইমিগ্রেশনে রওয়ানা করে। একইদিন দুপুরে পৌঁছে যায় ইমিগ্রেশনে।

পেরাক টিমের সূত্রে জানা গেছে, আগের দিন ১০০ জনের জন্য ঠিক করা হলেও জরুরি ফ্লাই করতে হবে এমন ৮৫ জনকে পাওয়া গেছে। তাদের নিয়েই পেরাক ইমিগ্রেশনে স্পেশাল পাস সংগ্রহ করা হয়েছে।

কুয়ান্তান টিম সূত্রে জানা গেছে, যাদের ফ্লাইট খুব নিকটে এমন ৮৬ জনকে পাওয়া যায়, তাদের নিয়ে সকালে রওনা করে দুপুরে কুয়ান্তান ইমিগ্রেশনে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে অপেক্ষমান ১৭ জনকে পাওয়া যায়, তাদেরকেও যুক্ত করে মোট ১০৩ জনের স্পেশ্যাল পাস সংগ্রহ করা হয়েছে। তাদের সবাইকে ফিরতি বাসে কুয়ালালামপুর পৌঁছে দেওয়া হয়।
পেরাক টিমে ছিলেন হাইকমিশনের ২য় শ্রম সচিব ফরিদ আহমেদ এবং কুয়ানতান টিমে ছিলেন কাউন্সেলর শ্রম-২ মোঃ হেদায়েতুল ইসলাম মন্ডল।

নিয়মিত আপডেট পেতে “প্রবাস জীবন” ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন