• আজঃ মঙ্গলবার, ৭ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

সৌদির অর্থনীতির বিপর্যয় ঠেকাতে নানা পদক্ষেপ

 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক


করোনা ভাইরাস কোভিড নাইন্টিনের কারণে কঠিন অর্থনৈতিক সংকটে পড়েছে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরব। ফলে দেশটি সংকট থেকে উত্তরণে বড় ধরণের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। দেশটির অর্থমন্ত্রী ইতিমধ্যে এ নিয়ে পদক্ষেপ ঘোষণা করেছেন। ঘোষণা অনুযায়ী, সৌদি নাগরিকদের জন্য রাষ্ট্রীয় বিশেষ ভাতা বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। একইসঙ্গে নাগরিকদের জন্য ভ্যাট বাড়িয়ে একবারে তিন গুন করা হয়েছে।

পৃথিবীর সব দেশই কমবেশি কোভিড নাইন্টিনের কারণে অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। তবে তেলভিত্তিক অর্থনীতির দেশ সৌদি আরব। বিশ্বজুড়ে লকডাউনের কারণে তেলের প্রয়োজনীয়তা কমে যাওয়ায় অপ্রস্তুত অবস্থায় বড় বিপর্যয়ের মুখে সৌদি অর্থনীতি।

এমন অবস্থার কথা ভেবেই রক্ষণশীলতাকে দূরে ঠেলে উদারিকরণের দিকে এগিয়ে যাচ্ছিলেন দেশটির ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান। অর্থনীতিকে বৈচিত্র্য করতে ঘোষণা করেছিলেন ভিশন-২০৩০ এর।

তেলসমৃদ্ধ দেশটি অর্থনীতিকে আবারও সুসংহত করতে তাই খুব কঠোর দুটি পদক্ষেপ নিতে চলেছে৷ সৌদি আরবের অর্থমন্ত্রী মোহাম্মদ আল জাদান এক বিবৃতিতে বলেছেন, ২০২০ সালের জুন থেকে জীবন যাপনের বিশেষ ভাতা বন্ধ এবং আগামী জুলাই মাসে ভ্যাট শতকরা ৫ ভাগ থেকে বাড়িয়ে ১৫ ভাগ করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে৷

সৌদি আরবে জীবন এমনিতেই ব্যয়বহুল৷ ভাতা বন্ধ হলে এবং ভ্যাট তিনগুণ করা হলে জীবন যাপন আরো কঠিন হবে৷ কিন্তু সরকার মনে করে, ক্রমশ ঘণীভূত হতে থাকা অর্থনৈতিক সংকট মোকাবেলা করতে এমন পদক্ষেপ খুব জরুরি৷ সরকার আশা করছে, ভ্যাট তিনগুণ এবং মাসিক ভাতা বন্ধ করার মাধ্যমে রাষ্ট্রীয় কোষাগারে ১০ হাজার কোটি রিয়াল, অর্থাৎ ২৬৬ কোটি ডলার জোগান দেয়া যাবে৷