• আজঃ বুধবার, ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

সাম্প্রতিক বিষয় “করোনা ভাইরাস” যুক্তরাষ্ট্রের ভার্জিনিয়া

কত জন আক্রান্ত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে?

সিডিসি (সেন্টার ফর ডিজিজ এন্ড প্রিভেনশন) অনেক সতর্কতার সাথে মনিটরিং করছে চীনের উহান প্রদেশ থেকে ছড়িয়ে পড়া এই করোনা ভাইরাস।

সিডিসি বলছে যুক্তরাষ্ট্র এই পর্যন্ত মোট ১৪ জনকে কন্ফার্ম করছে। তার মধ্যে ১২ জন হচ্ছে ট্রাভেল রিলেটেড। ২ জন আক্রান্ত হয়েছে মানুষ থেকে মানুষের ছোঁয়াচের কারণে। মোট ৪৪৫ জনকে এই পর্যন্ত টেস্ট করা হয়েছে।

কত জনকে ফেরত পাঠানো হয়েছে?

করোনা ভাইরাস সনাক্ত করার পর ৩ জনকে চায়নাতে ফেরত পাঠানো হয়েছে, এবং ৪২ জনকে ডায়মন্ড প্রিন্সেস ক্রুজ শিপে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে। যদি ও প্রায় ৪ জনের মত প্যাসেঞ্জের এই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন।

কোথায় এবং কোন স্টেটে কত জন?

যতদূর খবরের মাধ্যমে জানলাম, তার মধ্যে টেক্সাস আছে ১ জন এবং অন্য ১৫ জনের শরীরের ও করোনা ভাইরাস কন্ফার্ম করেছে সিডিসি। ওই একজন ১৪ দিন ফেডারেল কোয়ারেন্টাইন ছিল এবং একটা কাছাকাছি হাসপাতাল থেকে স্বাস্থ্য সেবা নিচ্ছেন।

ক্যালিফোর্নিয়াতে মোট ৮ জন। যদি ও ওখানে মোট ১৪ জনের মধ্যে বেশিরভাগের শরীরেই এই করোনা ভাইরাস সনাক্ত করেছে।

ওয়াশিংটন স্টেটে ৩৫ বছর বয়সী ১ জন ধরা পড়েছে। উনি চীনের উহান প্রদেশ থেকেই ফেরত আসার পর যুক্তরাষ্ট্রে এসে এই ভাইরাস ধরা পড়ে।

ম্যাসাচুসেট্স ধরা পড়েছে ১ জন। সে ২০ বছর বয়সী একটা ছাত্র। সে ও উহান থেকে জানুয়ারির ১৯ তারিখে যুক্তরাষ্টে প্রবেশ করার পর বোস্টন ক্যাম্পাস অফ দ্য ইউনিভার্সিটি অফ ম্যাসাচুসেট্স গেলে তারপর তার শরীরে এই ভাইরাস ধরা পড়ে।

উইসকনসিন স্টেটে ধরা পড়েছে আরো ১ জন। এই ব্যক্তি প্রায়ই বেইজিং ট্রাভেল করতো এবং এই কারণেই তাকে ও ওখান থেকে এই ভাইরাস ধরে ফেলে।

কারা কারা এখনো রিস্কে আছে?

ফেডারেল কোয়ারেন্টাইন এর আন্ডারে সিডিসি মোট ৬০০ জনকে মনিটর করছে যারা বিগত কিছুদিনের মধ্যেই উহান প্রদেশ থেকে ফেরত আসছে। বিগত ৫০ বছরের মধ্যে এটি হচ্ছে সর্বপ্রথম বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন।

কি করছে যুক্তরাষ্ট্রের সরকার?

যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের চায়না ভ্রমণ করতে কমপ্লিটলি নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। যারা যারা চায়না থেকে ফেরত আসছে তাদেরকে বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে ১৪ দিন রাখার নির্দেশ দিয়েছে।

সিডিসি সবার প্রতি রিকোয়েস্ট করেছে যাদের ট্রাভেলের কোন প্রয়োজন নেই তারা যেন সাবধানতা অবলম্বন করে এবং এই মুহৃর্তে কোন ট্রাভেল না করে এবং মানুষ যাতে ফ্লু সিজনের প্রটোকল মেইনটেইন করে, যেমন সাবান দিয়ে ২০ সেকেন্ডের মত হাত ধোয়া, অসুস্থ মানুষকে এড়িয়ে চলা, পারতপক্ষে বাড়িতে থাকা মানুষ জন অসুস্থ থাকলে ওদেরকে এড়িয়ে চলা।

গোলাম মাহমুদ , ভার্জিনিয়া , যুক্তরাষ্ট্র