• আজঃ মঙ্গলবার, ৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২০শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

করোনাকালের অনন্য দৃষ্টান্ত রাখছেন এপেক্স ক্লাব অব গাইবান্ধা

গাইবান্ধা থেকে আবু নাসের সিদ্দিক তুহিনঃ


এপেক্স ক্লাব অব গাইবান্ধার সব ধরনের কাজ পরিকল্পিত কার্যক্রমে রয়েছে পরিপাটি, চিন্তার প্রসার ও মানব কল্যাণের দৃষ্টান্ত। শুক্রবার ১৯ জুন বিকেলে গাইবান্ধা শহরের খাঁ পাড়ার খাঁ চত্বরে কোভিড উনিশ করোনা ভাইরাস থেকে বিশ্ব বাসি মুক্তি পেতে বিশেষ দোয়া, খাদ্য সামগ্রী ও মাক্স বিতরণ করা হয়।

এপেক্স ক্লাব অব গাইবান্ধার প্রসিডেন্ট এপেক্সিয়ান মনোয়ার হোসেন লাবলুর সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন এপেক্সিয়ান সুলতান উদ্দিন আহমেদ পিডিজি, এপেক্সিয়ান আব্দুল খালেক পিপি, এপেক্সিয়ান শামিউল ইসলাম পিপলু পিপি ,এপেক্সিয়ান আনিসুল হক দুলু পিপি , এপেক্সিয়ান এ্যাডভোকেট রোকনুজ্জামান পলাশ আইপিপি, এপেক্সিয়ান ফাতেমা ইয়াসমিন মল্লিক এসভিপি, এপেক্সিয়ান খায়রুজ্জামান দুদু জে ভিপি, এপেক্সিয়ান ইফতেখার ইমরান জিম সেক্রেটারী এন্ড ডিএনই, এপেক্সিয়ান গাউসুল আজম জুয়েল এসডি, এপেক্সিয়ান ডাঃ ফজলুর রহমান এসএনএ, এপেক্সিয়ান মাহফুজার রহমান স্বপন কোষাধ্যক্ষ , এপেক্সিয়ান শামিম আরা খানম এফএম,এপেক্সিয়ান নাজমা আক্তার এফ এম, এপেক্সিয়ান খায়রুল ইসলাম এফএম ও প্রেসক্লাব গাইবান্ধার সহ-সভাপতি সাংবাদিক আবু নাসের সিদ্দিক তুহিন প্রমুখ ।

বিশ্বব্যাপী কোভিড উনিশ করোনা ভাইরাস থেকে মুক্তির জন্য এক বিশেষ মোনাজাত করা হয় দোয়া পরিচালনা করেন গাইবান্ধার কাচারি বাজার জামে মসজিদের পেশ ঈমাম মওলানা আবু বক্কর সিদ্দিক। মোনাজাত শেষে গাইবান্ধা শহরের করোনাকালে যারা এখনো কিছুই পায়নি এরকম ১০০ জন মধ্যবিত্ত পরিবারকে খাদ্য সামগ্রী চাল,ডাল,আলু,তেল,লবন,সাবান, মাক্স ও লিফলেট বিতরণ করা হয়।

অতিসম্প্রতি এপেক্স ক্লাব অব গাইবান্ধা, গাইবান্ধার মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সক্ষম হয়েছে, সামাজিক সচেতনতায়,লিফলেট বিতরণের মাধ্যমে প্রচারাভিযানে, প্রাকৃতিক দূর্যোগ,বন্যা, খরা মহামারী, ঝড়,মানুষের আপদে বিপদে এগিয়ে আসায় ।

শেষ মেশ অতিসম্প্রতি আমাদের দেশে দেখা দিয়েছে কোভিড উনিশ মারাত্মক করোনা ভাইরাস এর প্রভাবে দেশ দেশের জনগন যখন বিব্রত ঠিক সেই মুহুর্তে কর্মহীন, নিরন্ন,ও হতাশার জালে আবদ্ধ হয়ে পড়েছে, ঠিক সেই মুহুর্তে গাইবান্ধা জেলায় মাঠে নেমেছেন এপেক্স ক্লাব অব গাইবান্ধার একদল নিবেদিত প্রাণ মানবতার সৈনিক।

করোনা আক্রমণের শুরুতেই এপেক্স ক্লাব অব গাইবান্ধা লিফটের মাধ্যমে প্রচারাভিযান চালিয়ে শুরু করেছে সচেতন করেছেন মানুষকে, মাক্স বিতরণ করেছে,কর্মহীন মধ্যবিত্ত মানুষের কাছে বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে খাদ্য সামগ্রিক পৌঁছে দিয়েছেন, রান্না করা খাবার দিয়েছেন, ইফতার সরবরাহ করেছেন, ঈদ উপহার খাদ্য সামগ্রি ও পোশাক পৌঁছে দিয়েছেন ।

জানা গেছে অতিসম্প্রতি গাইবান্ধা সরকারি উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ে পরপর কয়েক দফায়এপেক্স ক্লাব অব গাইবান্ধা ১০ হাজার লিফলেট বিতরণ করেছে, চাল,আলু,ডাল,তেল,সাবান, লবন,চিনি ১ হাজার মানুষের কাছে পৌঁছাতে পেরেছেন,ঈদ উপহার দিয়েছেন ৫ শত পরিবারকে, নগদ টাকা দিয়েছেন ১ হাজার পরিবারকে। এপেক্স ক্লাব অব গাইবান্ধার এই অনন্য দৃষ্টান্ত রেখে চলছেন যে মানুষটির হাত ধরে তার নাম মনোয়ার হোসেন লাবলু তিনি এপেক্স ক্লাব অব গাইবান্ধার প্রেসিডেন্ট এবং সফল একজন সংগঠক।

তাকে সবসময়ই পাশে থেকে সহযোগিতা করেছেন এপেক্সিয়ান এ্যাডভোকেট রোকোনুজ্জান পলাশ,এপেক্সিয়ান খায়রুজ্জামান, এপেক্সিয়ান শামিউল ইসলাম পিপলু,এপেক্সিয়ান গাউসুল আজম জুয়েল, এপেক্সিয়ান মাহফুজার রহমান স্বপন,এপেক্সিয়ান ইফতেখার ইমরান জিম এপেক্সিয়ান খায়রুল ইসলাম ,এপেক্সিয়ান ফজলুর রহমান,এপেক্সিয়ান মির্জা হাসান,এপেক্সিয়ান শহিদুল ইসলাম, খালেক,এপেক্সিয়ান খুরশিদ বিন আতা খসরু,এপেক্সিয়ান ফাতেমা বেগম,এপেক্সিয়ান ঝর্ণা বেগম প্রমুখ।

এপেক্স ক্লাব অব গাইবান্ধার প্রেসিডেন্ট এপেক্সীয়ান মনোয়ার হোসেন লাবলুর নেতৃত্বে এগিয়ে যাওয়া গাইবান্ধার কার্যক্রম, মানুষ মানুষের জন্য এর অনন্য দৃষ্টান্ত রেখেই চলছে যে কারনে এপেক্স ক্লাব আর গাইবান্ধাবাসী মনে রাখবে চিরদিন।

কবির ভাষায় বলতে ইচ্ছে হয়-
“তোরা পারবি নে কেউ, ফুল ফোটাতে
যতই তোরা পাপড়ি, টানিস আঘাত করিস বোটাতে,
তোরা পারবি নে কেউ ফুল ফোটাতে”
ফুল স্বাভাবিক ভাবেই ফুটবে প্রয়োজন, সহায়ক পরিবেশের, সেই কাজটিই করে যাচ্ছেন এপেক্সিয়ান মনোয়ার হোসেন লাবলু।

এপেক্সীয়ান মনোয়ার হোসেন লাবলু সেরকমই একজন সহায়ক পরিবেশ সৃষ্টিকারী মানুষ, উজ্জীবিত মানুষ সুচিন্তার মানুষ একাগ্রতায় পথচলার নিরলস প্রচেষ্টার মানুষ।