• আজঃ বৃহস্পতিবার, ১৪ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৯শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

সিনহা হত্যাকান্ডের গণশুনানীতে স্বাক্ষ্য দিলেন ৯জন প্রত্যক্ষদর্শী চুড়ান্ত প্রতিবেদন আগামী ২৩ আগষ্ট

কক্সবাজারের টেকনাফে সিনহা হত্যাকান্ডে গণশুনানীতে স্বাক্ষ্য দিলেন প্রত্যক্ষদর্শীরা। নিদিষ্ট সময়ে প্রতিবেদন জমা দেওয়ার আশ্বাস। টেকনাফ বাহারছড়া মেরিনড্রাইভে চেকপোস্ট পুলিশের গুলিতে সেনাবাহিনীর অবঃ মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান নিহতের ঘটনায় গণশুনানি অনুষ্ঠিত হয়েছে। উক্ত গণশুনানীতে ৯জন প্রত্যক্ষদর্শী তাদের স্বাক্ষ্য বা বয়ান প্রদান করেছেন। আগামী ২৩ আগষ্ট চুড়ান্ত রিপোর্ট দেওয়ার সময় নির্ধারণ বলে জানা যায়।

এক সূত্রে জানা যায়, ১৬ আগস্ট (রবিবার) সকাল সাড়ে ১১টা হতে বিকাল ৫টা পর্যন্ত বিশেষ নিরাপত্তায় তদন্ত কমিটির আহবায়ক ও চট্টগ্রাম অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, রামু ১০ পদাতিক ডিভিশনের জিওসি মনোনীত এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের লেঃ কর্ণেল সাজ্জাদ, চট্টগ্রামের ডিআইজি মনোনীত অতিরিক্ত ডিআইজি জাকির হোসেন এবং কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ শাজাহান আলীর সমন্বয়ে টেকনাফ বাহারছড়ার শামলাপুর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের সিআইসি অফিসে এই গণশুনানি অনুষ্ঠিত হয়।

এতে ঘটনার দিন বিকাল হতে হত্যাকান্ড সংগঠিত হওয়া হত্যাকান্ড পর্যন্ত ঘটনায় গণশুনানীতে ৯জন প্রত্যক্ষদর্শী তাদের স্বাক্ষ্য বা বক্তব্য প্রদান করেন। গণশুনানী কালে পুলিশের মাদক বিরোধী অভিযান চলাকালে ষড়যন্ত্রমূলক নির্যাতন, হয়রানি এবং অবৈধ উপায়ে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে ভূক্তভোগী শত শত মানুষ ভীড় চোখে পড়ারমত।

তদন্ত প্রতিনিধি দল স্বাক্ষ্য গ্রহণ শেষে উপস্থিত সকল সাংবাদিকদের জানান, তদন্ত কমিটি গঠিত হওয়ার পর থেকে ৩ বার সংশ্লিষ্টদের সমন্বয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। স্বাক্ষ্য দানের জন্য উপস্থিত ১১জনের মধ্যে ৯জনের স্বাক্ষ্য গ্রহণ করা হয়েছে এবং অপর ২জনকে প্রত্যক্ষ স্বাক্ষী মনে না হওয়ায় তাদের স্বাক্ষ্য নেওয়া হয়নি। তিনি আর বলেন এই ঘটনায় সম্পৃক্ত পুলিশ, আনসার সদস্য, যানবাহন যাত্রী, পোস্টমর্টেমকারী ডাক্তার ও পুলিশ, প্রতক্ষদর্শীসহ সংশ্লিষ্ট ৬০জনের সাথে কথা বলেছেন তদন্ত কমিটি। ইনশাআল্লাহ আশা করছি আগামী ২৩ আগষ্ট তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়া হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।