• আজঃ বুধবার, ১৩ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৮শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

চকরিয়ায় বৃদ্ধাকে নির্যাতনকারী তিন যুবক গ্রেফতার

অনলাইন ডেস্কঃ


কক্সবাজারের চকরিয়ায় এক বৃদ্ধকেধানক্ষেতে নিয়ে জামা-কাপড় ছিঁড়ে বিবস্ত্র করে নির্যাতনে অভিযুক্তদের তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২ জুন) অভিযান চালিয়ে জেলা পুলিশ ওই তিনজনকে আটক করে।

বুধবার (৩ জুন) পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ন্যক্কারজনক ঘটনাটিতে জড়িত বাকিদেরও ধরতে অভিযান চলছে।

গত ২৪ মে কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার ঢেমুশিয়া ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের ছয়কুড়িটিক্কা পাড়ায় নির্যাতনের শিকার হন নুরুল আলম (৭২)। ৪ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি আনছুর আলমের নেতৃত্বে একদল বখাটে যুবক ঘটনাটি ঘটায়।

পরে এ ঘটনার পর ৩১ মে বৃদ্ধ নুরুল আলমের ছেলে আশরাফ হোসাইন চকরিয়া থানায় মামলা করেন। এতে ওই এলাকার মৃত মনির উল্লাহর ছেলে আনছুর আলম, বদিউল আলম, শাহ আলম, শাহ আলমের স্ত্রী আরেজ খাতুন, বদিউল আলমের ছেলে মিজানুর রহমান, আবদুল জাব্বারের ছেলে রিয়াজ উদ্দিন, জয়নাল আবেদিন এবং মনজুর আলমের ছেলে মো. রুবেলকে অভিযুক্ত করা হয়।

মলার এজহারে আশরাফ হোসাইন উল্লেখ করেন, ‘২৪ মে আমার বৃদ্ধ বাবা নুরুল আলম ঈদের বাজার করে ঢেমুশিয়া স্টেশন থেকে টমটমযোগে বাড়ি ফিরছিলেন।

পথিমধ্যে যুবলীগ নেতা আনছুর আলমের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী টমটম থেকে আমার বাবাকে নামিয়ে নির্জন স্থানে নিয়ে পরনের লুঙ্গি, গেঞ্জি ছিঁড়ে উলঙ্গ করে ফেলেন। পাশাপাশি তাকে মারধর ও গালিগালাজ করেন। গ্রামের কয়েকজন যুবক এ দৃশ্য মোবাইলে ধারণ করেন।

এজাহারে আরও উল্লেখ করা হয়, ঘটনার সময় আমার বাবার ব্যবহৃত একটি মোবাইল ও পকেটে থাকা সাড়ে সাত হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয় সন্ত্রাসীরা।

তিনি বলেন, তুচ্ছ ঘটনার জেরে আমার বাবার ওপর অমানবিক নির্যাতন করেছেন সন্ত্রাসী আনছুর আলম। স্থানীয় যুবলীগ নেতা হওয়ায় তার বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুলতে সাহস পায় না।

তার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ রয়েছে। এমন কোনো অপকর্ম নেই যা সে করে না। আমরা এ ঘটনার বিচার চাই।

পুলিশ জানায়, চকরিয়ার এক বৃদ্ধকে নির্যাতনের ঘটনাটি নজরে আসা মাত্রই সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে তাৎক্ষণিক অভিযানে নামে পুলিশ। তারই ধারাবাহিকতায় এ তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হলো, বাকিদেরও গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।