• আজঃ বুধবার, ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

বাংলাদেশ থেকে দক্ষ কর্মী নিতে শ্রম বাজার খুলছে কাতার

দীর্ঘ কয়েক মাস বন্ধ থাকার পর কাতার কোম্পানি ভিসা লোক নেওয়া শুরু করেছে ৷ইতিমধ্যে আপনারা জেনেছেন কাতারের শ্রমবাজার খুলেছে একটু সংশোধন করে বলতে হবে কাতারে কোম্পানি ভিসার জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছে৷

বাংলাদেশ থেকে আগে কোম্পানি ভিসায় লোক যেত কিন্তু বেশ কিছু অভ্যন্তরীণ সমস্যার কারণে বিগত কয়েক মাস যাবত কোম্পানি ভিসায় বাংলাদেশ থেকে লোক নিয়োগ বন্ধ ছিল | ২০১৯ সালের মার্চের পর থেকে নতুন করে কোন ভিসা অ্যাপ্রভাল হয়নি ৷

যদিও গত বছর প্রায় 60 হাজার লোক কাতারে এসেছেন তার মধ্যে বেশির ভাগ লোক গৃহকর্মী,গাড়ির ড্রাইভার, ব্যক্তিগত ড্রাইভার, মালি বা যে কোন দোকান বা হোটেলে কাজ করার জন্য মহিলা গৃহকর্মী হিসেবে বেশ কিছু ভিসা অ্যাপ্রুভাল হয়েছে।

কিন্তু কোম্পানির কাজের জন্য বেশ কয়েক মাস ভিসা বন্ধ ছিল এমনকি ফিফা ওয়ার্ল্ড কাপ এ নিয়োগের জন্য কোন লোক নেওয়া হয়নি, কিন্তু কয়েকদিন আগে কোম্পানি ভিসায় লোক নিয়োগের বিষয়টি সিদ্ধান্ত নেয়া হয়৷
গত ৩ এবং ৪ জানুয়ারী ২০২০ কাতার এবং বাংলাদেশের ওয়ার্কিং গ্রুপের সঙ্গে একটি বৈঠকের মাধ্যমে এই বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করা হয় ৷

উক্ত মিটিংয়ে বাংলাদেশের প্রতিনিধি দল কাতারের প্রতিনিধি দলকে প্রস্তাব রাখে বাংলাদেশ থেকে লোক নিয়োগের ব্যাপারে কেননা অনেক সময় চাহিদা থাকা সত্ত্বেও কাতারের সরকার বাংলাদেশি ভিসা কে স্থগিত রেখেছিলেন ।

সেই সময়ে কাতারের প্রতিনিধিদল বেশকিছু শর্ত সাপেক্ষে নতুন করে কোম্পানি ভিসা চালু করার ব্যাপারে সম্মত হয়৷ সেখানে যে বিষয়গুলোর বা শর্তগুলো নিয়ে বিশেষভাবে আলোচনা করা হয় তা হচ্ছে।

অভিবাসন বা মাইগ্রেশন কস্ট নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রাখতে হবে৷ এবং মন্ত্রণালয় থেকে বলা হয়েছে সেই কষ্ট বহন করবে সেই দেশে যে কোম্পানি আছে সেই কম্পানি মাইগ্রেশন কস্ট বহন করবে বা নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রাখা হবে৷
সরকারিভাবে কাতারে আসতে হলে এক লক্ষ সাত হাজার আশি টাকা সর্বোচ ব্যয় যা বাংলাদেশ সরকার সকল এজেন্সির জন্য নির্ধারণ করেছেন ৷

এছাড়া এখন বেশ কিছু সুযোগ সুবিধার কথা বলা হয়েছে যেমন মেডিকেল এবং ফিঙ্গারপ্রিন্ট এখন বাংলাদেশ থেকে করা যাবে ,যাতে কোন শ্রমিক কাতারে আসার সঙ্গে সঙ্গেই তার আকামা তৈরি করতে পারেন এবং কর্মস্থলে যোগদান করতে পারে৷

কাতার মাইগ্রেশন কষ্টের ব্যাপারে অনেক বেশি শক্ত অবস্থানে যাচ্ছে কেননা তারা 2022 সালে ফিফা ওয়ার্ল্ড কাপ আয়োজন করতে যাচ্ছে সেজন্য তারা কর্মী নিয়োগের ,তাদের নিরাপত্তার এবং চাকরির ক্ষেত্রে কাজের

পরিবেশের বিষয়ে খুব বেশি সচেতনতা অবলম্বন করছে ৷
কেননা ফিফা ওয়ার্ল্ড কাপ কে কেন্দ্র করে তারা যদি এই বিষয়গুলোর মধ্যে সুন্দরভাবে সম্পন্ন করতে না পারে তাহলে তাদের বিশ্ব দরবারে খুব বেশি সমালোচনার শিকার হতে হবে৷

এখন প্রশ্ন হচ্ছে এত সব সুযোগ-সুবিধা দিয়ে কাতার সরকার কাদেরকে ভিসা দিয়ে নিয়ে আসবে অর্থাৎ কারা খুবই কম খরচে কাতারে আসতে পারবেন ৷

প্রথম যে শর্ত জুড়ে দেয়া হচ্ছে তা হচ্ছে তারা অবশ্যই দক্ষ কর্মী নিয়োগ করবেন অর্থাৎ আগের মতন অদক্ষ কর্মীর পক্ষে কাতার আসা সম্ভব হচ্ছে না অর্থাৎ আপনি যে পেশাতেই আসেন না কেন আপনাকে আপনার সেই পেশাতে অবশ্যই দক্ষতা অর্জন করে আসতে হবে৷

যে সকল খাত গুলোতে এখন দক্ষ কর্মী নিয়োগ করা হবে তার মধ্যে বিশেষ উল্লেখযোগ্য হচ্ছে কৃষি ক্ষেতে, পরিসেবা ক্ষেত্রে অর্থাৎ বিদ্যুৎ পানি ক্লিনিং, সিকিউরিটি গার্ড,হাসপাতাল কর্মী ৷

তারমানে চাইলেই যে কোন ব্যক্তি আসতে পারছেন না কাতারে এসে সকল রকম সুযোগ সুবিধা পেতে হলে আপনাকে অবশ্যই আপনার নিজ নিজ কর্মের স্থানে আপনাকে দক্ষ হয়ে আসতে হবে।

দক্ষ কর্মীদের আসার ক্ষেত্রে বিশেষ সতর্কতা হিসেবে অবশ্যই আসার আগে খুব ভালো ভাবে আপনাকে আপনার কন্টাক্ট পেপার দেখে বুঝে আসতে হবে কেননা আপনার কন্টাক্ট পেপারে আপনার মাইগ্রেশন কস্ট কে বহন করবে এবং আপনার বেতন কত হবে এবং কি ধরনের সুযোগ-সুবিধা আপনি পাচ্ছেন তার সবই বিস্তারিতভাবে লেখা থাকবে৷

তাই কাতারে আসার আগে অবশ্যই সবকিছু ভালোভাবে বুঝে শুনে এবং দক্ষ হয়ে প্রবাসে আসা অত্যন্ত জরুরী ৷