• আজঃ মঙ্গলবার, ৭ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২২শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

সৌদি আরবে বাংলাদেশী তরুনী কে ধর্ষণ

পরিবারের আর্থিক স্বচ্চলতার আশায় দালালের খপ্পরে পড়ে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সৌদি আরবে পাড়ি জমান বাংলাদেশী তরুনী । সৌদি আরবে যাওয়ার ১০ দিনের মাথায় ,  রাজধানী রিয়াদে অমানবিক নির্যাতন শুরু হয় ধর্ষিত হওয়া তরুনীর উপর । তাকে একটি রুমে আটকে রেখে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে তিন দিন ধরে কয়েক জন বাংলদেশী মিলে ধর্ষণ করে তরুনী কে ।

অমানসিক নির্যাতনের ফলে মেয়েটি জ্ঞান হারিয়ে ফেলে । অবশেসে ধর্ষণকারীরা মেয়েটি কে  রিয়াদের সমুচি হাসপাতালে রেখে চলে যায় ।

সেখানে তিন মাস চিকিৎসা সেবা নেয়ার পর কিছু টা  সুস্থ হয়ে উঠেন । এর মধ্যে তাকে রবি বার সমুচি হাসপাতাল থেকে ১৫০ কি।মি। দূরে তৌমির হাসপাতালে হস্তান্তর করা হয় । পুরোপুরি সুস্থ না হওায় বিছানা থেকে উঠতে ও বসতে পারছেন না তিনি । সেখান কর্তব্যরত এক বাংলাদেশী বলেন যেভাবে তাকে  নির্যাতন করা হয়েছে তা বলে বুঝানো যাবে না । ধর্ষণের পাশাপাশি শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে তরুণীর

তিনি বলেন, ‘তরুণী গৃহকর্মী জানায়, সে বাংলাদেশ থেকে যে অফিসের মাধ্যমে সৌদি আরবে এসেছিল সেখানকার বাংলাদেশিরাও এ ঘটনায় জড়িত ।  তার শুধু মনে আছে কিছু লোক তার ওপর ঝাঁপিয়ে পড়েছিল। অজ্ঞান হয়ে যাওয়ার পর  আর কিছুই মনে নেই তার।’

বিদেশে এমন নিকৃষ্ট ও অমানবিক ঘটনায় সৌদি আরবের বাংলাদেশ দূতাবাস ও বাংলাদেশ সরকারের কাছে অপরাধীদের শাস্তি ও তরুনীকে দেশে ফিরিয়ে দেয়ার আবেদন জানিয়েছে ভুক্তভোগী ও ভুক্তভোগীর পরিবার।