• আজঃ বুধবার, ৬ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২১শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

মানবতার এক ফেরিওয়ালার নাম খোন্দকার আব্দুল মোমেন

বিশ্বব্যাপী মহামারী আকার ধারণ করা করোনা ভাইরাসের প্রভাবে আজ স্থবির হয়ে পড়েছে বাংলাদেশের মানুষের জীবন। লক ডাউন জীবনে কর্মহীন হয়ে পড়া মানুষের বেঁচে থাকা অনেক কষ্টের হয়ে পড়েছে।

মানুষের এই কষ্ট লাঘব করার জন্যে অনেক মহৎ মনের মানুষেরা মানবতার ফেরিওয়ালারা হয়ে আবির্ভূত হয়েছেন। তাঁরা নিজের জীবন, পরিবার ও সম্পদের কথা চিন্তা না করে অন্যের কষ্ট লাঘব করার জন্যে মানবতার ফেরিওয়ালারা হয়ে মানুষের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন।

খোন্দকার অাব্দুল মোমেন তাদের মধ্যে একজন। তিনি করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ যুদ্ধের শুরু থেকেই সন্মুখ যোদ্ধা হিসেবে কাজ করে চলেছেন, হত দরিদ্র, অসহায়, কর্মহীন মানুষের বাড়ী বাড়ী নিজ অর্থায়ন খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন।

ঝিনাইদহ জেলা অটো বাইক শ্রমিক কল্যাণ সোসাইটির সাধারন সম্পাদক ও অগ্রযাত্রা বাইক সেন্টারের সত্যাধিকারী খোন্দকার আব্দুল মোমেন। এ পযর্ন্ত প্রায় দুই হাজার অসহায় দরিদ্র কর্মহীন শ্রমিকদের মাঝে ধাপে ধাপে

খাদ্য সামগ্রী, শাড়ি, লু্ঙ্গি ও নগদ অর্থ বিতরন করেছেন। তাছাড়াও বিভিন্ন সংগঠন, রাজনৈতিক ব্যাক্তি ও সাংবাদিকদের মাধ্যমে অসহায় দরিদ্র পরিবারে খাদ্য সামগ্রী, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও মাক্স বিতরন করেন।

এ বিষয়ে ঝিনাইদহ পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান, আওয়ামীলীগ নেতা আনিচুর রহমান খোকা বলেন, খোন্দকার আব্দুল মোমেন একজন করোনা কালীন সেচ্ছাসেবক হিসেবে প্রথম থেকেয় নিজ অর্থায়নে মানুষের সহযোগিতা করে আসছে।

মানবতার যোদ্ধা খোন্দকার আব্দুল মোমেনের কাছে জানতে চাওয়া হলে সে প্রতিবেদকে জানান, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ যুদ্ধের শুরু থেকেই সন্মুখ যোদ্ধা হিসেবে কাজ করে চলেছি, হত দরিদ্র, অসহায়, কর্মহীন মানুষের বাড়ী বাড়ী নিজ অর্থায়ন খাবার পৌঁছে দেবার চেষ্টা করছি। সমাজের সবাই যদি তার নিজ নিজ যায়গা থেকে মানুষের পাশে দারায়, তাহলে অার কেউ না খেয়ে থাকবে না।

এখন প্রযত্ন তার কাছ থেকে কেউ খালি হাতে ফেরেনি বলে জানান পাগলাকানাই এলাকার একজন মহিলা তিনি আরও বলেন খোন্দকার আব্দুল মোমেনের মত ছেলে সবার সবার ঘরে ঘরে যানো আল্লাহ দেয়।