• আজঃ রবিবার, ১২ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

সৌদি আরবে কোন বাংলাদেশী মারা গেলে করনীয়

প্রতিবছর সৌদিআরবে সাধারণত প্রায় দুই হাজার বাংলাদেশী বিভিন্ন কারণে মৃতুবরণ করেন। বর্তমানে করোনার কারণে মার্চ থেকে এখন পর্যন্ত বিমান চলাচল বন্ধ থাকায় কোনো লাশ দেশে প্রেরণ করা সম্ভব হচ্ছে না। ফলে হিমঘরে লাশ জমে যাচ্ছে। সৌদি আরবে বিভিন্ন হিমাগারে প্রবাসী বাংলাদেশীদের মৃতদেহগুলো দাফনে পরিবারের পক্ষ থেকে অনুমতির বড় প্রয়োজন।

জানি আবেগ আছে, কিন্তু কতদিন আপনার প্রিয়জনের লাশ এভাবে অবহেলায় মর্গে ফেলে রাখবেন। সৌদি আইন অনুযায়ী ষাট দিনের মধ্যে লাশ মর্গ হতে সড়িয়ে না নিলে (দাফন কিংবা দেশে প্রেরণের মাধ্যমে) কর্তৃপক্ষ আমাদের না জানিয়েই দাফন করে ফেলতে পারে। তার চেয়ে উত্তম হলো প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টেশন এর পরেই যেন যথাযথভাবে লাশটি দাফন হয়।

গতবছরও রিয়াদ দূতাবাসের অধীক্ষেত্রাধীন এলাকায় মারা যাওয়া ৯৯৮ জনের মধ্যে মাত্র ১১৩ জনের মৃতদেহ ছাড়া সকল মৃতদেহ দেশে প্রেরণের ব্যবস্থা করা হয়েছিল, বাকীগুলো পরিবারের আবেদনের ভিত্তিতে স্থানিয়ভাবে দাফন করা হয়েছিল। কিন্তু এখন তো পরিস্থিতি ভিন্ন। তাই সকলকে পরিস্থিতি বিবেচনা করে দাফনের অনুমতি দেয়ার অনুরোধ রইল।

আরেকটি কথা , লাশ সৌদিআরবে স্থানীয়ভাবে দাফন হলেও প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের তরফ হতে তিন লক্ষ টাকার আর্থিক সহায়তা পাওয়া যাবে। এই কথা এই জন্য বলা যে অনেকেই এখানে দাফনের অনুমতি দিতে চান না আর্থিক অনুদান না পাওয়ার ভয় থেকে।

ভাই, আল্লাহর রাসুল সাঃ বলেছেন ইকরামুল মায়্যিত আদ দাফন অর্থাৎ মৃতদেহ দাফন করাই মৃতের প্রতি সম্মান দেখানো। তাই যতদ্রূত সম্ভব মৃতদেহ দাফনেই মৃতের কল্যাণ। ব্যাক্তিগতভাবে আমি নিজের ব্যাপারে অসিয়ত করেছি আমি যেখানেই মারা যাই আমার লাশ যেন সেখানেই দ্রূততম সময়ের মধ্যে দাফন করে দেয়া হয়। মৃতের কবরের পাশে দাঁড়িয়ে তার আত্মীয় সজন দোয়া করা এবং দূর হতে দোয়ার মধ্যে সোয়াব পৌঁছানোতে বেশকম নেই ভাই। আল্লাহ চাইলে আটলান্টিকের অপর প্রান্তের দোয়া ঘরের কাছের দোয়ার চাইতে দ্রূত কবুল করতে পারেন।

আপনাদের পরিচিত কেউ যদি সৌদিআরবে মারা গিয়ে থাকে বিনীত অনুরোধ থাকবে তাকে সৌদি আরবে দাফনের জন্য বাংলাদেশ হতে পরিবারের প্রয়োজনীয় অনুমতিটি প্রেরণ করার জন্য।

রিয়াদ দূতাবাসের অনাপত্তি পত্র পেতে যে সমস্ত ডকুমেন্ট প্রয়োজন নমুনা সহ তার বিস্তারিত এই লিংকেঃ https://drive.google.com/open?id=13hCaA5IUggdZiARMvc6UGz_RrJB9KVVX

বাংলাদেশ কনস্যুলেট জেনারেল জেদ্দার অনাপত্তি পত্র পেতে যে সমস্ত ডকুমেন্ট প্রয়োজন নমুনা সহ তার বিস্তারিত এই লিংকেঃ https://drive.google.com/open?id=161_Qq5cTzQexR6Av4xfOPQeATNeiU2hD

স্থানীয় জেলা জনশক্তি অফিসের সকলের নাম্বার ও ইমেইলঃ https://drive.google.com/open?id=1MH1KkJhTjLDmDbK1es_nRVbpv7ftflsU

বাংলাদেশ দূতাবাস রিয়াদের সংশ্লিষ্ট ফোন নাম্বার সমূহঃ http://www.bangladeshembassy.org.sa/contactd.html

সৌদিআরবে কোন বাংলাদেশী মারা গেলে করনীয় জানতে এবং খবর জানাতে

রিয়াদ দূতাবাসে- মোবাইলঃ +966570212180 (শুধুমাত্র মৃত্যু সংক্রান্ত বিষয়ে এই নাম্বারে কল করে কিংবা হোয়াটস আপে জানাতে পারেন। ডকুমেন্ট প্রেরণ করতে পারেন)
ইমেইলঃ [email protected] এ ইমেইল করতে পারেন।

জেদ্দা কনস্যুলেটে- মোবাইলঃ +966556221858 +966533147912 (শুধুমাত্র মৃত্যু সংক্রান্ত বিষয়ে এই নাম্বারে কল করে কিংবা হোয়াটস আপে জানাতে পারেন। ডকুমেন্ট প্রেরণ করতে পারেন)
ইমেইলঃ [email protected] এ ইমেইল করতে পারেন।

প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টসমুহ প্রস্তুত করে বাংলাদেশ দূতাবাস রিয়াদে কিংবা জেদ্দা কনস্যুলেটে উপরোক্ত মোবাইল ফোনে হোয়াটস আপ মারফত কিংবা ইমেইলে প্রেরন করতে পারেন। দূতাবাসে আপনার স্বশরীরে উপস্থিত হওয়ার প্রয়োজন নেই।

মামুনুর রশিদ
বাংলাদেশ দূতাবাস, রিয়াদ