• আজঃ শনিবার, ৯ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৪শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে ফিলিপাইনের সমর্থন চায় বাংলাদেশ

রোহিঙ্গাদের টেকসই প্রত্যাবাসনে ফিলিপাইনের সমর্থন চেয়েছে বাংলাদেশ।

রোববার (১৮ অক্টোবর) রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন বাংলাদেশে নিযুক্ত ফিলিপাইনের রাষ্ট্রদূত ভিসেন্তে ভিভেনসিও টি বান্দিলো। এ সময় ফিলিপাইনের সমর্থন কামনা করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ‌্য জানানো হয়েছে।

সাক্ষাৎকালে ২০১৬ সালে চুরি হওয়া বাংলাদেশ ব্যাংকের অর্থ পুনরুদ্ধারের বিষয়েও ফিলিপাইনের সাহায‌্য চান বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

বাংলাদেশ ব‌্যাংকের চুরি হওয়া ৮১ মিলিয়ন ডলারের মধ্যে ১৫ মিলিয়ন ডলার ফিরিয়ে দিতে বাংলাদেশ সরকারকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করার জন্য ফিলিপাইন সরকারকে ধন্যবাদ জানান ড. একে আবদুল মোমেন। বাকি অর্থ উদ্ধার না হওয়া পর্যন্ত ফিলিপাইনের সরকার সমর্থন অব্যাহত রাখবে বলে আশা ব্যক্ত করেন তিনি।

রাষ্ট্রদূত বান্দিলো অর্থ পুনরুদ্ধারের বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকে সহযোগিতার আশ্বাস দেন। তিনি বলেন, ‘ফিলিপিনো সরকার অর্থপাচারের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য কিছু ব্যবস্থা নিয়েছে।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী উল্লেখ করেন, ফিলিপাইনের সঙ্গে মিয়ানমারের ঘনিষ্ট সম্পর্ক আছে। রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে এর প্রভাব খাটানো উচিত।

তিনি বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের ভীতি দূর করার জন্য বাংলাদেশ দীর্ঘদিন ধরে আসিয়ানের নেতৃত্বে বেসামরিক পর্যবেক্ষক দল গঠনের প্রস্তাব করে আসছে। তবে মিয়ানমার এই প্রস্তাব বাস্তবায়নে ইতিবাচকভাবে এগিয়ে আসেনি।’

ড. মোমেন সতর্ক করেন, রোহিঙ্গা সংকট সমাধান না হলে উগ্রপন্থীরা এর সুযোগ নিতে পারে। এতে আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক সুরক্ষা অবশ্যই হুমকির মুখে পড়বে।

ড. মোমেন আসিয়ানের সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে মিয়ানমারকে রাজনৈতিক চাপ দেওয়ার জন্য অনুরোধ জানান।

নার্সিং, মেরিন ইঞ্জিনিয়ারিং এবং সামুদ্রিক সম্পদের ক্ষেত্রে ফিলিপাইনকে বিশ্বে শ্রেষ্ঠ হিসেবে অভিহিত করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, বাংলাদেশ যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ফিলিপাইনের সঙ্গে নার্সিং শিক্ষার বিষয়ে সমঝোতা স্বাক্ষর করতে আগ্রহী।

শিগগিরই সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করার জন্য প্রয়োজনীয় কাজ করার আশ্বাস দেন ফিলিপাইনের রাষ্ট্রদূত।