• আজঃ বৃহস্পতিবার, ১৪ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৯শে অক্টোবর, ২০২০ ইং

অবিশ্বাস্য রোনালদোর গোলের সেঞ্চুরি, জয় পেয়েছে পর্তুগালও

সুইডেনের জালে ফ্রিকিক থেকে বল জড়িয়ে আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের শততম গোলের উদযাপন সারলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। আর এর কিছু সময় পরে আরও এক গোল করে নেশ’নস লিগে পর্তুগালের টানা দ্বিতীয় জয়ও নিশ্চিত করলেন পর্তুগিজ সম্রাট। শেষ পর্যন্ত সুইডেনকে ২-০ গোলে হারিয়ে মাঠ ছাড়ে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর পর্তুগাল।

রেকর্ডটা যেন শেষের জন্য তুলে রেখেছিলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। তাই তো নেশনস লিগে পর্তুগালের প্রথম ম্যাচে মাঠেই নামেননি তিনি। তবে আবারও ক্লাব ফুটবলের ফেরার আগে পর্তুগালের হয়ে সুইডেনের বিপক্ষে মাঠে নামেন রোনালদো। ম্যাচের আগেই কানাঘুষা চলছে আজই হয়ত হতে চলেছে রোনালদোর আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের শততম গোলটি। সংবাদমাধ্যমে বিশেষ ক্রোড়পত্র, রোনালদো ছুঁয়ে ফেলবেন গোলের শতক। তাই তো সুইডেনের বিপক্ষের পর্তুগালের ম্যাচটি ঘিরে ছিল বিশেষ উত্তেজনা।

ম্যাচের ৪৪তম মিনিটে জাও মোতিনহোকে ফাউল করে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখেন সুইডেনের গুস্তাভ সভেন্সন। আর তাতেই ডি বক্সের ২৫ গজ দূরে ফ্রিকিক পায় পর্তুগাল। এমন জায়গা থেকে কতবার লক্ষ্যভেদ করেছেন রোনালদো, তা জানতে দেখতে হবে পরিসংখ্যানের খাতা। রোনালদো চিরচারিত ভঙ্গিতে বলের থেকে কিছুটা দূরে দাঁড়িয়ে, রেফারি বল শট নেওয়ার বাঁশি বাজানোর সঙ্গে সঙ্গে ভেতরের অক্সিজেনের ঘাটতিটা পূর্ণ করে দৌড়ে গিয়ে সজোরে বলে আঘাত করলেন রোনালদো।

আর এর ন্যানো সেকেন্ডের মধ্যেই সতীর্থদের সঙ্গে বুনো উল্লাসে মেতে উঠলেন পর্তুগিজ সম্রাট। ইউরোপিয়ান ফুটবলারদের মধ্যে ইতিহাসে প্রথমবার আন্তর্জাতিক গোলের শতক পূর্ণ করলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। আর ইরানের কিংবদন্তি ফরোয়ার্ড আলী দাইয়ের পর দ্বিতীয় খেলো’য়াড় হিসেবে পূর্ণ করলেন গোলের শতক। আলী দাই ইরানের হয়ে ১০৯টি গোল করেছিলেন। তিনি অবসর নেওয়ায় এই রেকর্ডটা নিজের করে নেওয়ার হাতছানি সামনে রোনালদো।

ম্যাচের প্রথমার্ধ রোনালদোরা শেষ করেন ১-০ গোলে এগিয়ে থেকে। জাও ফেলিক্স, বার্নার্দো সিলভাদের নিয়ে গড়া আক্রমণভাগের পেছনে ছিলেন ব্রুনো ফার্নান্দেজ এবং জাও মোতিনহোর মতো মিডফিল্ডার আর সেই সঙ্গে তো পর্তুগিজ যুবরাজ ক্রি’স্টিয়ানো রোনালদো ছিলেনই। তাই তো সু’ইডেনের বিপক্ষে জয়টা অনুমেয়ই ছিল পর্তুগালের। দুর্দান্ত আক্রমণে সুইসদের রক্ষণকে গোটা ম্যাচজুড়েই ব্যস্ত রাখেন রোনালদোরা। যার ফল রোনালদোর জোড়া গোল।

প্রথম গোলটি ফ্রিকিক থেকে করলেও দ্বিতীয় গোল রোনালদো করেন জাও ফেলিক্সের সহায়তা থেকে। ম্যাচের ৭২ মিনিটে ডি বক্সের ভেতরে ফেলিক্সের কাছ থেকে দারুণ এক বল পেয়ে যান রোনালদো, আর বাঁকানো শটে বল জালে জড়ান রোনালদো আর দেখা পেয়ে যান জোড়া গোলের। এটি পর্তুগালের জার্সিতে রোনালদোর ১০১তম গোল।