• আজঃ বুধবার, ১৫ই আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৩০শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ ইং

সিংড়ায় সাবেক এমপি পুত্রকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জখম করলো প্রতিপক্ষরা

নাটোরের সিংড়া-৩ আসনের সাবেক এমপি ইয়াকুব আলীর পুত্র আশিক ইকবালকে (৪৬) হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে মাথা থেঁতলে দিয়েছে প্রতিপক্ষরা। এঘটনায় সুকাশ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক হাসমত আলীসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে নন্দীগ্রাম থানায় মামলা করা হয়েছে। এদিকে গুরুত্বর আহত ইকবালকে বগুড়া জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টার দিকে নন্দীগ্রাম উপজেলার রনবাঘা বাজারে এ হামলার ঘটনা ঘটেছে। এদিকে ঘটনাস্থল থেকে তিন হামলাকারীকে গণপিটুনি দিয়ে নন্দীগ্রাম থানায় দিয়েছে স্থানীয় জনতা। আটককৃতরা হলেন- সিংড়া উপজেলার ১নং সুকাশ ইউনিয়নের লক্ষীখোলা গ্রামের হাশেম আলী, মুন্নাফ হোসেন ও রবিউল ইসলাম।

এদিকে আশিক ইকবাল এর সমর্থকদের দাবি রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার সে। তাদের দাবি ১৫ আগষ্ট উপলক্ষে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফিকের সভায় যোগদান করায় তাঁর উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,সম্প্রতি লক্ষীখোলা গ্রামে আওয়ামী লীগ কর্মী শরিফুলের জমির ঘাস কাটাকে কেন্দ্র করে আব্দুল লতিফের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের সিংড়া থানায় পৃথক দুটি মামলা করা হয়েছে। এ ঘটনায় ইকবালের বিরুদ্ধে একটি পক্ষকে মদদ দেয়ার অভিযোগ করেছে অপর পক্ষ।

এরই জের ধরে শুক্রবার সন্ধ্যায় রনবাঘা মাছ বাজারে আশিক ইকবালের ওপর হামলা চালায় প্রতিপক্ষরা। এ সময় তাকে হাতুড়ি ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে মাথা এবং হাত ও পায়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। এ সময় পরে স্থানীয় জনতা ধাওয়া করে হামলাকারীদের আটক করে পুলিশে দেয়।

সুকাশ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হালিম মো. হাসমত আলী বলেন, লক্ষিকোলা গ্রামে কয়েকদিন আগে দু পক্ষের মধ্য মারামারি হয়। গ্রামের মারধরের জেরে এ ঘটনা ঘটতে পারে, এর সাথে আমাকে জড়ানোর ঘৃন্য ষড়যন্ত্র চলছে। আমি কোনো ভাবেই এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত নই।

নন্দীগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ শওকত কবির বলেন, মারপিটের ঘটনায় ৪ জনের বিরুদ্ধে নন্দীগ্রাম থানায় মামলা করা হয়েছে।